ভদ্র মেয়েরা হচ্ছে সমাজের সৌন্দর্য। এমন অনেকপুরুষআছেন যারা ভদ্র মেয়ে বিয়েকরবেন এইভেবেবিয়েই করছেননা, অথচ বিয়েরবয়স যাচ্ছে পেরিয়ে।আসুন কিছুকমনবৈশিষ্ট্য দেখে চিনেনেই সত্যিকারের ভদ্র মেয়ে:
১) ভদ্র মেয়েরা সর্বপ্রথম তাদের পোশাক নিয়ে খুবসচেতন থাকে।এমনকিছু পরে না যাতে করেবাহিরের কেউ চোখ তুলে তাকাতে সাহস করে। অনেকে বোরখা পরতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে।
২) ভদ্র মেয়েরা প্রেমের ব্যাপার নিয়ে খুব সিরিয়াস থাকে।তারা সচারচর প্রেমে জড়াতে চায় না, কিন্তু যদি কারো সাথে প্রেমে জড়িয়ে যায়, তাহলে মন প্রাণ দিয়ে চেষ্টা করেতা টিকিয়ে রাখতে।
৩) ভদ্র মেয়েরা সবসময় বন্ধু, পরিবার এবংবয়ফ্রেন্ডকে আলাদাভাবেগুরুত্ব দেয়। একটিরজন্য অপরটিরউপরপ্রভাব পড়ুক তা তারা চায় না। যার জন্য তাদের ঝামেলাপোহাতে হয় বেশি।
৪) ভদ্র মেয়েদের রাগএকটুবেশি।যার উপর রেগেযায় তাকে মুখের উপরসব বলে দেয়। মনেকোনও রকম রাগ,হিংসে লুকিয়ে রাখে না। এতে অনেকের কাছে ঝগড়াটে উপাধিওপেয়ে বসে।
৫) ভদ্র মেয়েদের রাগের ঝামেলাপোহাতে হয় বিশেষকরেতাদের বয়ফ্রেন্ডকে। এরা রেগেথাকলেঅযথাবয়ফ্রেন্ডকে ঝাড়ে। পরবর্তীতে নিজেদের ভুলবুঝতে পেরে সরি বলে। যে মেয়ে তার বয়ফ্রেন্ডকে সরি বলে তাহলে বুঝতে হবে সে তার বয়ফ্রেন্ডকে খুববেশিভালোবাসে।
৬) ভদ্র মেয়েরা সাধারণত ফেসবুকে ছবি আপলোড দেয় না। যদি দেয় তাহলে প্রাইভেসি দিয়ে রাখে। ফেসবুকে কতিপয়লুলুপুরুষথেকে তারা ১০০হাত দূরে থাকে।
৭) ভদ্র মেয়েদের বন্ধু/বান্ধবের সংখ্যা খুবসীমিত থাকে।
৮) ভদ্র মেয়েরা আড্ডা বাজিতে খুব একটাযেতে চায় না। যার জন্য তাদের বন্ধু/বান্ধব থেকে ভাব্বায়ালি/আনকালচার খেতাবপেতে হয়।
৯) ভদ্র মেয়েদের কবিতালেখারপ্রতি আগ্রহ বেশি।তারা তাদের লেখাকবিতাসচরাচর কাছের মানুষ ছাড়া কাউকেদেখাতে চায় না।
১০) ভদ্র মেয়েরা সাধারণঘরকুনো স্বভাবের বেশিহয়।
১১) ভদ্র মেয়েদের কাছে পরিবারেরসম্মানটুকু সবার আগে। তারা পরিবারেরসম্মানের বিরুদ্ধে কোনও কাজ কখনওকরেনা।

Advertisements