“পর্যটকদের বিলাসে জন্ম যাদের”

তারা অন্য শিশুদের থেকে ভিন্ন৷ কেননা দারিদ্র্য এবং বাবা ছাড়াই তাদের বেড়ে উঠতে হয়৷ তারা ফিলিপাইন্সে বেড়াতে আসা ব্যক্তিদের যৌন বিলাসের ফল৷ প্রতিবেদন, জার্মান ভিত্তিক পত্রিকা ডিডাব্লিউ।

যৌন ব্যবসার উপর নির্ভরশীলতা একদিকে দারিদ্র্য, অন্যদিকে সুযোগের অভাব – এই দুটো কারণে ফিলিপাইন্সের ওলোনগাপো শহরে তরুণীরা বেছে নিচ্ছেন যৌনবৃত্তিকে৷ অন্য জায়গা থেকেও এখানে মেয়েরা আসে বার এ কাজ করতে৷ প্রতি বছর যৌন পর্যটনের কারণে জন্ম নিচ্ছে কয়েক হাজার শিশু৷

পিতৃহীন প্রজন্ম চার বছরের ড্যানিয়েলের বাবা অ্যামেরিকান ছিলেন বলে ধারণা করা হয়, আর তার অন্য ভাই-বোনরা ফিলিপিনো বাবার সন্তান, যিনি পরিবার ত্যাগ করে চলে গেছেন৷ ড্যানিয়েলের মা অনেক বছর ধরেই বার-এ কাজ করছেন৷ চেষ্টা করে যাচ্ছেন যাতে সন্তানদের ভবিষ্যতটা ভালো হয়৷

যৌন পর্যটকদের লালসার শিকার ছোট্ট রায়ান বাস্কেটবল নিয়ে খেলতে ভালোবাসে৷ তার বাবা জাপানি৷ তার মা এখনও একটি বার-এ যৌন পেশায় নিয়োজিত৷ রায়ানের আরো চার সহোদর রয়েছেন, যাদের বাবা ভিন্ন৷

পেশার সুযোগ সাদা চামড়ার শিশু যেমন সাবরিনা – তাদের ফিলিপাইন্সের ভাষায় বলা হয় বাঙ্গুস অর্থাৎ মিল্ক ফিশ৷ এ ধরনের শিশুরা পরবর্তীতে অভিনেত্রী বা মডেলের পেশা বেছে নেয়৷ সাবরিনার বাবা জার্মানিতে থাকেন, তবে তার সাথে পরিবারের কোনো যোগাযোগ নেই৷

প্রজাপতি লায়লা প্রতিদিন ব্যাকপ্যাক নিয়ে ঘুরে বেড়ায়৷ আগামী বছর স্কুলে ভর্তি হওয়ার সব চেষ্টা করবে সে৷ পড়ালেখায় তার ব্যাপক আগ্রহ৷ লায়লার মা জানালেন, লায়লার বাবা অ্যামেরিকান৷ লায়লার জন্মের আগে তাকে একথা জানানো হলো৷ একথা শোনামাত্র ‘প্রজাপতির’ মতই চলে গিয়েছিলেন তিনি৷

জীবনভর বয়ে বেড়ানো আফ্রিকা বা আফ্রো অ্যামেরিকান বাবার সন্তানেরা ফিলিপাইন্সে ‘নিগ্রো’ হিসেবে সমাজে পরিচিত হয়৷একমাত্র সন্তান ছোট্ট লেস্টারের বয়স যখন এক বছর তখন তার বাবা মারা যায়৷ মায়ের সাথে তার বাবা ৭ বছর জীবন কাটিয়েছিলেন৷ কিন্তু বর্তমানে শিশুটি নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত৷ চিকিৎসার সব দায়িত্ব নেয়া তার মা জেসিকার পক্ষে সম্ভব নয়৷

নতুন পরিবার অ্যাঞ্জেলার ছেলে স্যামুয়েলের বাবা সুইস৷ কিন্তু তার জন্মের আগেই বাবা তাদের ফেলে চলে যায়৷ তবে এখন অ্যাঞ্জেলা ফিলিপাইন্সের এক নাগরিককে বিয়ে করেছেন৷ সে পরিবারে নতুন এক সন্তান এসেছে যার বয়স মাত্র এক সপ্তাহ৷ বিয়ের পর বার-এর চাকরিও ছেড়ে দিয়েছেন অ্যাঞ্জেলা৷chirld

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s